উইন্যাম্প

আমি ছোট বেলা থেকেই প্রচুর গান শুনি। গান শোনার মাধ্যম আস্তে আস্তে পালটে গেছে। প্রথমে শুনতাম ফিতাওয়ালা ক্যাসেটে, রেডিওতে। তারপর পর্যায়ক্রমে আস্তে আস্তে সেটা ক্যাসেট থেকে যে কত মাধ্যমে পালটে গেলো। ওয়াকম্যান, সিডি, কম্পিউটার, ছোট এমপিথ্রি। এখন এক মোবাইলেই সব কিছু।

আগে অংক করতে করতে গান শুনতাম। ওয়াকম্যান, এমপিথ্রি, মোবাইল নিয়ে হাঁটতে হাঁটতে, দৌড়ের সময়, সাইক্লিংসহ সকল কাজের সঙ্গীই এই মিউজিক।

ইন্টারনেট আসার আগে কষ্ট করে সিডি কিনতে হইত, এখনো একগাদা সিডি আছে সংগ্রহে। তারপর সেগুলা কম্পিউটারে কপি করে শুনতাম। প্রথম প্রথম নেট আসার পরে পোলাপাইনডটকম, এমপিথ্রিডটকম, আরো নানান রকম ওয়েব সাইট থেকে গান নামিয়ে শুনতাম। এখন আর অত ঝামেলা নাই, সরাসরি ইউটিউব, সাউন্ডক্লাউড, স্পটিফাইয়ের মাধ্যমে শোনা হয়। একদিকে কাজ চলতে থাকে, আরেক দিকে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক হিশাবে গান চলতে থাকে। এমনকি গান ছেড়ে ঘুমিয়েও যাই।

কিছুদিন আগে কুবের মাঝির (Shoshi Roy) উইন্যাম্প প্লেয়ার নিয়া পোস্ট দেখলাম। লেখা ছিল ‘এইটা একটা আবেগ।’ সঙ্গে উইন্যাম্প প্লেয়ারের সেই ছবিটা। আহা!

সঙ্গে সঙ্গে মনে হইছিল, পুরাটা সফটওয়্যারে দেখবো আছে কিনা। ঐদিন কাজ থাকায় মনে ছিল না। আজ ড্রাইভে সফটওয়্যারের ফোল্ডার ঘাটতে গিয়ে দেখি পুরানা তিনটা সফটওয়্যার আছে। উইন্যাম্প, হিরো, জেট অডিও। পুরানা সব সফটওয়্যারগুলাই আমাদের টিনএজের বয়সের এক একটা আবেগ।

সফটওয়্যার ইনস্টল দিলাম। ড্রাইভে অনেক অনেক গান রাখা ছিল সেগুলাও নামাইলাম। সংখ্যা প্রায় ১৮৪৫। সবগুলা গান উইন্যাম্পে ছেড়ে দিছি শাফল মুডে। সঙ্গে সঙ্গে র‌্যান্ডমলি এক একটা গান বাজতেছে। সব গানই সেই সময়ে শোনা। একেকটা গান মনে হচ্ছে একেকটা সময় ধরে রাখছে। রবীন্দ্র, নজরুল, লালন, বাউল, বিচ্ছেদ, রক, মেটাল, ক্লাসিক সবই আছে।

পরিণয় একজনের সাথে হলেও, বলব বলব করে না বলতে পাড়া প্রেম থেকে শুরু করে প্রেম তো কম ছিল না। স্কুলের ম্যাডাম থেকে শুরু করে এলাকার ৮/১০ বছর বড় আপুদের প্রেমে পড়াও ছিলো। প্রতিটা আলাদা আলাদা গানের সাথে সাথে একেকটা পুরানা মুখ ভেসে উঠতেছে চোখের সামনে। সঙ্গে সঙ্গে ভেসে উঠতেছে স্কুল পালানো, নাখালপাড়ার, এগার নাম্বার গলির আড্ডা, আলীর বাড়ির আড্ডা, রেল লাইনের আড্ডা, পাগলারপুলে বন্ধুর সাথে বসে থাকার স্মৃতি, শাহীনবাগের স্মৃতি, শাহীন কলেজের ফুটওভার ব্রিজে বসে দুই বন্ধুর সুখ-দুঃখের গল্প।

আহা জীবন কত সুন্দর…

২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯

Comments

comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.